বিএনপির দৃষ্টিসীমা এখন কুয়াশাচ্ছন্ন: সেতুমন্ত্রী

0
130

অগণতান্ত্রিক পন্থায় ক্ষমতা দখলের দিবাস্বপ্ন ভেস্তে যাচ্ছে বলেই বিএনপির দৃষ্টিসীমা এখন কুয়াশাচ্ছন্ন বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড, অগ্রগতি এবং দেশ এগিয়ে যাওয়ার কোনো চিত্র বিএনপি দেখতে পায় না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের মেরুদণ্ড শক্ত, কারণ সরকারের সঙ্গে জনগণ রয়েছে। কোনো দৃশ্যমান বা অদৃশ্য শক্তির কাছে বঙ্গবন্ধুকন্যা মাথা নত করেন না। বরং বিএনপির রাজনীতি চলছে অদৃশ্য সুতোর টানে।

সেতুমন্ত্রী রোববার দুপুরে তার বাসভবনে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন। ‘দেশ এক অদৃশ্য শক্তি চালাচ্ছে, এ শক্তি বিএনপির ওপর খবরদারি করছে’-বিএনপি নেতাদের এমন বক্তব্য প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, আসলে শেখ হাসিনার উন্নয়ন ও ভবিষ্যৎমুখী রাজনীতি বিএনপির সুবিধাবাদী রাজনীতির ওপর অমানিশার ছায়া ফেলেছে। বর্তমানে দেশের মানুষ নির্ভয়ে এবং স্থিতিশীল পরিবেশে নিজ নিজ কর্মকাণ্ড এগিয়ে নিচ্ছে।

‘দেশে আতঙ্ক ও নির্মম রাজনৈতিক পরিস্থিতি বিরাজ করছে’-বিএনপি নেতাদের এমন অভিযোগের উত্তরে সেতুমন্ত্রী বলেন, তাদের এমন অভিযোগ ভিত্তিহীন। বর্তমান সরকার কোনো দলের ওপর খবরদারি করে না বরং সরকার পরিচালনাকে পবিত্র দায়িত্ব মনে করে। তিনি বলেন, বিএনপি নেতাদের এমন অভিযোগ চিরাচরিত ও কাল্পনিক, সরকারের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ তোলার আগে তাদের নিজেদের শাসনকালের কথা মনে করা উচিত। আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন-জনগণ নয়, অনিয়ম-দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরকারের জিরো টলারেন্স নীতির কারণে বর্ণচোরা, সুবিধাবাদী রাজনীতিবিদ এবং জনগণের সম্পদ লুণ্ঠনকারীরা আতঙ্কে আছে। তিনি বলেন, ধর্মকে পুঁজি করে বিভেদ সৃষ্টিকারী সাম্প্রদায়িক অপশক্তি আতঙ্কে রয়েছে। আতঙ্কে আছে আগুন সন্ত্রাসীরা। দেশের সাধারণ মানুষ আতঙ্কে নয়, বরং ভালো আছে, স্বস্তিতে আছে।

বিএনপিকে আয়নায় নিজেদের চেহারা দেখার পরামর্শ দিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, যারা ক্ষমতায় থাকাকালে হাওয়া ভবন তৈরি করে দুর্নীতিকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছিল, জনগণের অর্থ পাচার করে বিদেশে অর্থের পাহাড় গড়েছিল, পাচারকৃত অর্থে বিদেশে আয়েশি জীবন যাপন করেছে এবং তাদের কি বলব? তিনি বলেন, ক্ষমতায় থাকাকালে বিএনপি একজন দুর্নীতিবাজের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নিতে পারেনি, অথচ তারা আজ নতুন নতুন সবক দেয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here