মহাকাশ স্টেশনে ঘুরে বেড়াচ্ছে বাংলা বই

0
9

১৯৬১ সালের ১২ই এপ্রিল রাশিয়ার নাগরিক ইউরি গ্যাগারিন পৃথিবীর প্রথম কোনো মানুষ হিসেবে মহাকাশে গমন করেন। তারপর থেকে এখন পর্যন্ত পৃথিবীর ৪২ টি দেশের প্রায় ৬০০ নাগরিক মহাকাশে গমন করেছেন। ১৯৯৮ সালে আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশন তৈরির পর থেকে আজ পর্যন্ত সব সময় পৃথিবীর কোনো না কোনো মহাকাশচারী গবেষণার জন্য মহাকাশে আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে অবস্থান করছেন।

এখন পর্যন্ত কোনো বাংলাদেশি মহাকাশচারী মহাকাশে গমন না করলেও আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনের লাইব্রেরিতে জায়গা করে নিয়েছে বাংলা ভাষায় লেখা বই ‘মহাবিশ্বের মহাকাশ ফাড়ি’।

মহাকাশের বিভিন্ন মৌলিক বিষয় নিয়ে বইটি লিখেছেন শাহ জালাল জোনাক। এটি বাংলা ভাষার প্রথম বই, যা মহাকাশে বা আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনের লাইব্রেরিতে স্থান করে নেয়।
রাশিয়ান মহাকাশচারী এবং আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনের বর্তমান কমান্ডার ওলেগ আর্তেমইয়েভ গত ১৮ই মার্চ ২০২২ তারিখে কাজাখস্তানে অবস্থিত রাশিয়ার বাইকোনুর কসমোড্রোম থেকে মহাকাশে যাওয়ার সময় এই বইটি মহাকাশে নিয়ে যান। বর্তমানে তিনি মহাকাশে অবস্থান করছেন এবং  ৩ জুন তিনি বইয়ের লেখক শাহ জালাল জোনাককে আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশন থেকে তাঁর বইয়ের ছবি এবং একটি ভিডিও ক্লিপ প্রেরণ করেন যাতে দেখা যায় বাংলা ভাষার প্রথম কোনো বই আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে ভেসে বেড়াচ্ছে।

 

ছবি ও ভিডিও এর সাথে আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনের বর্তমান কমান্ডার রাশিয়ান মহাকাশচারী ওলেগ আর্তেমইয়েভ একটি ক্ষুদে বার্তাও পাঠান, সেখানে তিনি লিখেন- “তোমার দেশ এবং তোমার দেশের মানুষের জানা উচিত যে তোমাদের ভাষার বই ইতোমধ্যেই মহাকাশে চলে এসেছে এবং পরবর্তী ধাপ হওয়া উচিত মহাকাশে তোমার দেশের মানুষের কোনো প্রতিনিধি (মহাকাশচারী) এবং এটা তোমার হওয়া উচিত। ”

শাহ জালাল জোনাক বর্তমানে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে রাশিয়ার বাউমান মস্কো স্টেট টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটিতে রকেট কমপ্লেক্স অ্যান্ড স্পেস সায়েন্স বিষয়ে রাশিয়ান ফেডারেশনের শতভাগ শিক্ষাবৃত্তি নিয়ে পড়াশোনা করছেন এবং একজন মহাকাশচারী হবার জন্য নিজেকে প্রস্তুত করছেন।

শাহ জালাল জোনাক বলেন, প্রায় ১৩০০ বছর ধরে চলতে থাকা আমাদের বাংলা ভাষার কোনো বই এই প্রথম মহাকাশে স্থান করে নেয়। আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশন থেকে আমার লেখা “মহাবিশ্বের মহাকাশ ফাড়ি” বইটির ভিডিও করে পাঠিয়েছেন রাশিয়ার মহাকাশচারী এবং বর্তমান আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনের কমান্ডার ওলেগ আর্তেমইয়েভ। এই গর্ব শুধু আমার না বা বাংলাদেশের না, এই গর্ব পুরো বাংলা ভাষাভাষীর।

তাঁর লেখা ‘মহাবিশ্বের মহাকাশ ফাড়ি’ বইটি ২০২০ সালে তাম্রলিপি প্রকাশনী থেকে প্রকাশ করা হয়। এই বইটি ছাড়াও শাহ জালাল জোনাক আরও ৬টি বই লিখেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here