তরুণ আলেমদের ক্যারিয়ার ভাবনা

0
25

হালাল উপার্জন ফরজ ইবাদাত। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির উৎকর্ষতার এ যুগে সুন্দর জীবন গঠনে উন্নত ও সম্মানী পেশার দিকে ছুটছে মানুষ। বিশ্বায়নের এ যুগে নিজেকে মেলে ধরতে পিছিয়ে নেই তরুণ আলেমরাও।

এক সময় শুধু মসজিদ মাদ্রাসামুখী আলেম সমাজ বর্তমানে বিভিন্ন পেশায় যুক্ত হচ্ছেন। মাদ্রাসাগুলো থেকে যে হারে মাওলানা হয়ে বের হচ্ছেন সে তুলনায় মসজিদ মাদ্রাসা যথেষ্ট কম।

চলতি বছর সদ্য মাস্টার্স স্বীকৃতিপ্রাপ্ত (ইসলামিক স্টাডিজ ও অ্যারাবিকে) কওমি মাদ্রাসার সম্মিলিত শিক্ষাবোর্ড আল হাইয়াতুল উলইয়া লিল জামিয়াতিল কওমিয়া বাংলাদেশ থেকে তাকমিল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছেন ২৪ হাজার ৯২৩ শিক্ষার্থী। ছাত্র রয়েছেন ১৫ হাজার ৩৬ জন আর ৯ হাজার ৮৯৩ জন ছাত্রী। এ ছাড়া কামিল পরীক্ষা দিয়েও মাওলানা হচ্ছেন হাজারো তরুণ আলেম। তাদের কর্মক্ষেত্র সম্পর্কে বিস্তারিত লিখেছেন-আহমদ ইসলামাবাদী

অনুবাদ, সম্পাদনা ও লেখালেখি : ক. মাদ্রাসাপড়ুয়া তরুণ আলেমরা অনুবাদক ও সম্পাদক পেশায় নিজেকে নিয়োজিত করতে পারেন। আরবি, বাংলা, উর্দু, ইংরেজি ভাষায় অনেক তরুণ আলেমদের ভাষা দক্ষতা রয়েছে। ভাষাজ্ঞান কাজে লাগিয়ে আরব বিশ্বসহ উপমহাদেশের বিভিন্ন লেখকদের বই অনুবাদ করে নিজেকে নিয়ে যেতে পারেন এক অনন্য উচ্চতায়। এ ছাড়াও বিভিন্ন বইয়ের সম্পাদনায়ও নিজেকে মেলে ধরতে পারেন তারা। এক্ষেত্রে ঢাকার বাংলাবাজারসহ দেশের বিখ্যাত প্রকাশনীগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ করে নিজ যোগ্যতায় কাজ করতে পারেন।

খ. সৃজনশীল লেখালেখি : তরুণ আলেমরা সৃজনশীল লেখালেখি করে নিজের প্রতিভাকে বিকশিত করতে পারেন। বর্তমানে বইমেলায় ইসলামি বইয়ের চাহিদা অনেক। যুক্তির কষ্টিপাথরে ইসলামের বিভিন্ন বিষয়াবলিকে সামনে রেখে লেখা বইগুলো বাজারে বেস্টসেলার হচ্ছে। কোনো কোনো বই লাখ লাখ কপিও বিক্রি হয়েছে। এ ছাড়া বেশিরভাগ জাতীয় দৈনিকে ‘ইসলাম ও জীবন’ পাতা রয়েছে। সেখানে বিষয়ভিত্তিক লেখা চান সম্পাদক ও প্রকাশকরা। এখানে লেখালেখি করেও একটা ভালো সম্মানী পেতে পারেন।

গ্রাফিক্স ডিজাইন : বর্তমান সময়ে গ্রাফিক্স ডিজাইন একটি প্রফেশনাল পেশায় পরিণত হয়েছে। বই, খাতা, ডায়েরি, ক্যালেন্ডার, ব্যানার, ফেস্টুন, ক্যাশমেমো, গেঞ্জি, পাঞ্জাবি, ম্যাগাজিনসহ যাবতীয় সেবায় গ্রাফিক্স ডিজাইনের প্রচুর চাহিদা রয়েছে। যে কোনো তরুণ আলেম মাত্র ৬ থেকে ৮ মাস কোর্স করে ভালো গ্রাফিক্স ডিজাইনার হতে পারেন। এ থেকে ভালো উপার্জন করে স্বাবলম্বী হতে পারেন তরুণ আলেমরা।

অনলাইন বিজনেস ও ক্ষুদ্র ব্যবসা : বর্তমানে ইন্টারনেটের মাধ্যমে সারা বিশ্বের সঙ্গে মুহূর্তেই যোগাযোগ সম্ভব। তাই অনলাইন বিজনেস হতে পারে ব্যবসা ও উপার্জনের একটি সুন্দর মাধ্যম। অল্প পুঁজি নিয়ে পাইকারি মার্কেট থেকে পণ্য ক্রয় করে তা অনলাইনে শেয়ার করে ব্যবসা করতে পারেন যে কোনো তরুণ আলেম। নিজের বন্ধুবান্ধব, আত্মীয়স্বজন, নিজ পরিচিতজনের মাঝে এসব প্রোডাক্ট সেল করতে পারেন। ধীরে ধীরে একজন তরুণ আলেম একজন সফল ব্যবসায়ী হিসাবে নিজেকে গড়ে তুলতে পারেন।

উপস্থাপনা ও সাংবাদিকতা : ক. উপস্থাপনা একটি নন্দিত শিল্প। রাসূল (সা.)-এর বাণী, ‘আমার পক্ষ থেকে একটি বাণী হলেও পৌঁছিয়ে দাও।’ (মিশকাত শরিফ, কিতাবুল ইলম, হাদিস নং : ১৯৮) ইউটিউবে কুরআন, হাদিস, ফিকহ, তাফসির, ইতিহাস এবং সমসাময়িক বিভিন্ন বিষয়াবলি নিয়ে ভিডিও তৈরি করে খ্যাতির পাশাপাশি ভালো উপার্জনও করতে পারেন একজন তরুণ আলেম। তবে এক্ষেত্রে ভাষা সুন্দর, সাবলীল, আকর্ষণীয় ও গোছালো হওয়া অপরিহার্য। কথা বলার স্টাইল যত সুন্দর, মনোরম, গোছালো ও আকর্ষণীয় হবে ততই তা মানুষের কাছে গ্রহণযোগ্যতা পাবে।

বর্তমানে অনেক ওয়ায়েজ, খতিব, মোটিভেশনাল স্পিকার তাদের নিজস্ব বক্তৃতা ইউটিউবে আপলোড করে থাকেন। অনেক কণ্ঠশিল্পী হামদ, নাত, গজল পরিবেশন করে থাকেন। দেশ-বিদেশি কুরআনের প্রখ্যাত কারিরা ও বিশ্বজয়ী হাফেজরা তাদের সুন্দর তেলাওয়াত ফেসবুক, ইউটিউবে আপলোড করে কর্তৃপক্ষ থেকে প্লে বাটনও পেয়েছেন। প্রত্যেক পেশাজীবী মানুষও তাদের নিজস্ব কর্মপদ্ধতি ইউটিউবে আপলোডের মাধ্যমে বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষের মাঝে নিজেদের কার্যক্রমকে ফুটিয়ে তুলতে পারেন নন্দিতভাবে।

খ. এ ছাড়া সাংবাদিকতা পেশায় যথেষ্ট চাহিদা রয়েছে তরুণ আলেমদের। বর্তমানে অনলাইন নিউজ পোর্টাল খুলে সেখানে গ্রহণযোগ্য, বস্তুনিষ্ঠ খবরাখবর প্রচার করছেন আলেম সমাজ। দেশ, বিদেশ, আন্তর্জাতিক খবরের পাশাপাশি প্রবন্ধ, নিবন্ধও আগ্রহের সঙ্গে পড়ছেন মানুষ।

ফ্রিল্যান্সিং : ফ্রিল্যান্সিং মূলত এমন একটি পেশা যেখানে ইন্টারনেটের মাধ্যমে স্বাধীনভাবে অর্থ উপার্জন করা যায়। ফ্রিল্যান্সিং করতে প্রয়োজন ইচ্ছাশক্তি ও ধৈর্য। এক্ষেত্রে কাজ চালানোর মতো ইংরেজি জানা থাকতে হবে। ফ্রিল্যান্সার হওয়ার জন্য গুগল, ইউটিউবের বিভিন্ন সোর্স থেকে বের করার দক্ষতা থাকতে হবে। ফ্রিল্যান্সাররা কেউ গ্রাফিক্স ডিজাইনার, কেউ ওয়েব ডিজাইনার, কেউ ডিজিটাল মার্কেটার হিসাবে কাজ করে থাকেন। এখানে বিদেশি ক্লায়েন্টদের সঙ্গে ফ্রিল্যান্সররা চুক্তিভিত্তিক কাজ করেন। বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিংয়ে বাংলাদেশের অবস্থান অষ্টম।

সরকারের আইসিটি বিভাগ বলছে, দেশে ফ্রিল্যান্সারের সংখ্যা প্রায় সাড়ে ৬ লাখ, যারা অন্তত ১০০ মিলিয়ন ডলার আয় করে। তরুণ আলেমরা চাইলে ভালো প্রশিক্ষণ নিয়ে ফ্রিল্যান্সিং করে স্বাধীনভাবে আয় করতে পারেন।

অনলাইন টিচিং বা শিক্ষকতা : অফলাইনের পাশাপাশি অনলাইনেও তরুণ আলেমরা শিক্ষকতা করতে পারেন। জেনারেল শিক্ষিত অনেক ভাইদের এবং অনেক চাকরিজীবী কিংবা বয়স্কদের পবিত্র কুরআন শরিফ সহিহ শুদ্ধভাবে পড়ার আগ্রহ জাগ্রত রয়েছে। পাশাপাশি কুরআনের অর্থ, ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণও শেখার আগ্রহ অসংখ্য জেনারেল শিক্ষিত ভাইদের। এক্ষেত্রে দেশে কিংবা বিদেশে বসেও জুম অ্যাপসে, ইমুতে, ভিডিও কলে অনলাইন পাঠদান করানো সম্ভব।

দোভাষী : যেহেতু আলেমদের বিভিন্ন ভাষায় পারদর্শিতা রয়েছে তাই দোভাষী হিসাবে বিভিন্ন দূতাবাসে চাকরি করতে পারেন। এক্ষেত্রে দেশীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে কাজ করার সুযোগ যেমন হবে তেমনি যোগ্যতা ও নিত্যনতুন অভিজ্ঞতাও অর্জিত হবে।

ভূমি সার্ভেয়ার বা দলিল লেখক : একজন সার্ভেয়ার বিভিন্ন নির্মাণ প্রকল্পগুলোর জন্য সম্পত্তির সীমানা নির্ধারণ সম্পর্কিত পরিমাপের কাজ করে থাকেন। এ ছাড়া কোনো স্থানের মানচিত্র তৈরি, খনন এবং আইনি উদ্দেশ্যের জন্য দরকারি ডাটা সরবরাহ করে থাকেন। বিশেষত গ্রামাঞ্চলে দুই বা একাধিক পরিবারের মাঝে জমিসংক্রান্ত সৃষ্ট ঝামেলায় একজন ভূমি সার্ভেয়ার খতিয়ান দেখে যাচাইপূর্বক সমাধান দিয়ে থাকেন। মাদ্রাসাগুলোতে মুসলিম ফরায়েজি আইন ও এ সংক্রান্ত কিতাব ‘সিরাজি’ পাঠদান করানো হয়। একজন তরুণ আলেম চাইলে ৬ মাস থেকে ১ বছরের ভূমি জরিপের কোর্স সম্পন্ন করে এ পেশায় নিজেকে সম্পৃক্ত করতে পারেন। এ ছাড়া জমির খতিয়ান লেখার জন্য দলিল লেখারও চাহিদা রয়েছে সমাজে। এক্ষেত্রে কম্পিউটার চালনায় অভিজ্ঞতা অর্জন করে একজন তরুণ আলেম এ পেশায় নিজেকে সম্পৃক্ত করতে পারেন।

হজ ও ট্রাভেলস এজেন্সি : ক. প্রত্যেক মুসলমানদের হৃদয়ের বাসনা থাকে জীবনে একবার হলেও হজ ও ওমরাহ করার। মক্কা মদিনার জেয়ারত করা। হজ ও ওমরাহে যাওয়ার জন্য বিভিন্ন মানুষের সহযোগিতার প্রয়োজন পড়ে। অর্থের বিনিময়ে যেসব প্রতিষ্ঠান হজ, ওমরাহর কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকেন এসব প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছে হজ এজেন্সি গ্রুপ। এক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠানকে সরকারি লাইসেন্স গ্রহণ করতে হয়। একজন তরুণ আলেম চাইলে হজ এজেন্সির ব্যবসা করে নিজেকে স্বাবলম্বী করতে পারেন। সাধারণ মানুষের হজ ওমরাহে সহযোগিতা প্রদানের জন্য ‘মুয়াল্লিম’ তথা যিনি হজ ওমরাহে হাজিদের প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা প্রদান করবেন এমন আলেমদের চাহিদা রয়েছে। এ পেশায় আলেমরা সম্পৃক্ত হতে পারেন।

খ. ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরস : মানুষের যতগুলো শখ রয়েছে তার মধ্যে ট্রাভেল অন্যতম। নতুন নতুন জায়গা, প্রাচীন স্থাপনা, সাগর, নদী, পাহাড় ঘুরে বেড়ানো অন্যতম। এ ছাড়াও মানুষ বিভিন্ন প্রয়োজনে বিভিন্ন রাষ্ট্র সফর করে থাকেন। ভ্রমণপ্রিয় মানুষদের জন্য বা অর্থের জন্য বিদেশগামী মানুষদের সেবা প্রদানের জন্য ভিসা, টিকিট, পাসপোর্ট ইত্যাদি সেবা করে থাকে এজেন্সিগুলো। তরুণ আলেমরা এ পেশায় নিজেকে সম্পৃক্ত করতে পারেন অনায়াসেই।

এ ছাড়া অসংখ্য পথ খোলা রয়েছে তরুণ আলেমদের জন্য। সব কাজে প্রয়োজন দক্ষতা, একনিষ্ঠতা, পরিশ্রম ও ধৈর্য। এসব গুণাবলি মানুষকে সফলতার দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে দেয়। হতাশ না হয়ে তরুণ আলেমরা সম্মানী পেশায় নিজেদের মেলে ধরে সফলতার দ্বারপ্রান্তে নিয়ে যেতে পারেন।

লেখক : শিক্ষক- জামিয়া আরাবিয়া দারুল উলুম নতুনবাগ, খিলগাঁও, ঢাকা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here