জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার পেলেন ইবি ভিসি

0
22

জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার- ২০১৫ পেয়েছেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. শেখ আবদুস সালাম। সংগঠক ক্যারাম ক্যাটাগরিতে তিনি এ পুরষ্কার পেয়েছেন। বুধবার ভার্চুয়াল কনফারেন্সে প্রধান অতিথি হিসেবে পুরস্কার প্রদান করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তার পক্ষ থেকে ওসমানি স্মৃতি মিলনায়তনে এ পুরস্কার তুলে দেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল। এর আগে তিনি মঙ্গলবার বিকালে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে পুরস্কারপ্রাপ্তির বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

সরকারের যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এ পুরস্কার দেওয়া হয়েছে। ক্রীড়া ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য ২০১৩-২০২০ সাল পর্যন্ত আট বছরে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে এ পুরস্কার পেয়েছেন ৮৫ জন খেলোয়াড় ও সংগঠক। পুরস্কার হিসেবে প্রত্যেককে আঠারো ক্যারেট মানের ২৫ গ্রাম ওজনের স্বর্ণপদক, এক লাখ টাকার চেক এবং একটি সম্মাননাপত্র দেওয়া হয়।

জানা যায়, ড. সালাম বাংলাদেশ ক্যারাম ফেডারেশনের প্রতিষ্ঠাতা এবং ১৯৮০ সাল থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত সংগঠনের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তার নেতৃত্বে বাংলাদেশ ক্যারাম দল বিভিন্ন সময়ে ভারত, মালদ্বীপ ও শ্রীলংকা প্রভৃতি দেশে অনুষ্ঠিত সার্ক কান্ট্রিজ ক্যারাম টুর্নামেন্ট, এশিয়ান ক্যারাম টুর্নামেন্ট, ওয়াল্ড ক্যারাম কংগ্রেস প্রভৃতি প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে কৃতিত্বের স্বাক্ষর রাখে। ১৯৯৫ সালে ঢাকায় অনুষ্ঠিত ৫ম সার্ক ক্যারাম টুর্নামেন্টে মিক্সড ডাবলস-এ বাংলাদেশ দল ভারতকে হারিয়ে স্বর্ণ জয় করেন।

তিনি এশিয়ান ক্যারাম কনফেডারেশনের প্রতিষ্ঠাকালীন সহ-সভাপতি ছিলেন। প্রফেসর ড. সালাম ২০১৪ সাল থেকে অদ্যাবধি বাংলাদেশ ফিজিক্যালী চ্যালেঞ্জড ক্রিকেটের সভাপতির এবং বর্তমানে ন্যাশনাল প্যারালিম্পিক কমিটি, বাংলাদেশ এর সিনিয়র ভাইস-প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

পুরস্কার প্রাপ্তির বিষয়ে ভিসি প্রফেসর ড. শেখ আবদুস সালাম বলেন, এটি অত্যন্ত সম্মানজনক একটি পুরস্কার। যারা দীর্ঘদিন ধরে ক্রীড়া অঙ্গণে সফলতার সঙ্গে কাজ করছেন, তারাই এটা পেয়ে থাকেন। আমাকে মনোনয়ন দেওয়ার জন্য সরকার ও সংশ্লিষ্ট মহলের সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই। চেষ্টা করব আমার সর্বোচ্চটুকু দিয়ে ক্রীড়া ক্ষেত্রে আরও ভালো কিছু করার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here