বনের প্রাণীরা আমাদের যে বার্তা দেয়

0
56

জঙ্গলের হরিণদের যদি দেখে থাকেন, তাহলে নিশ্চয় দেখেছেন তারা সবসময় দলবদ্ধ হয়ে থাকে। শুধু হরিণ নয়, প্রায় সব প্রাণীই দল বেঁধে থাকে, একা একা থাকে না।

হরিণের জীবনের উদ্দেশ্য যদিও ঘাস, পানি আর এদিকওদিক ঘুরে বেড়ানো ছাড়া আর কিছু নয়, কিন্তু জঙ্গলের দুনিয়ায় সবসময় ছোট প্রাণীকে বড় প্রাণীর ভয়ে থাকতে হয়। সব প্রাণীই আশঙ্কায় থাকে না-জানি তাকে কোনো বড় শিকার করে ফেলে।

এইজন্য প্রাণীরা আলাদা আলাদা থাকে না, বরং দলবদ্ধ হয়ে থাকে। তারা একঙ্গে চলে, একঙ্গে বসে, একঙ্গেই সব কাজ করে। এসব তারা এইজন্য করে যেন কোনো বিপদ এলে সবাই মিলে মোকাবেলা করতে পারে।

কোনো দুশমন যেন তার একা থাকার সুযোগ পেয়ে আক্রমণ করতে না পারে। বন্যপ্রাণীরা তাদের সবধরনের বন্যতা থাকা সত্ত্বেও শুধুমাত্র বিপদ থেকে বাঁচতে একতাবদ্ধ হয়ে থাকে।

জঙ্গলের প্রাণীমাত্রই জানে একা চলাচল করা মানে নিজেকে নিজেই দুশমনের মুখে সোপর্দ করা। আর তার বিপরীতে দলবদ্ধ থাকা মানে তাদের আর দুশমনের মাঝে এক মজবুত দেয়াল দাঁড় করিয়ে দেওয়া।

প্রকৃতি প্রত্যেক প্রাণীকে এই গুণ তার স্বভাবেই দিয়ে রেখেছেন। তারা নিজেদের এই গুণ পুরোপুরি ব্যবহার করে। তারা জঙ্গলের মতো অরক্ষিত দুনিয়াতেও বাস্তবতাপ্রেমীর মতো জীবনযাপন করে।

মানুষও এই সত্য খুব ভালো করে জানে। বন্যপ্রাণীরা কেবল স্বভাবজাত কারণে, আর মানুষ তার উন্নত চিন্তাশক্তি দিয়েও একথা বোঝে।

কিন্তু খুব কমই এই উদাহরণ পাওয়া যাবে যে মানুষ এই বোধকে কার্যত বাস্তবায়ন করেছে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই মানুষ দলবদ্ধ হতে গিয়ে শেষতক ব্যর্থ হয়। মানুষ মানুষ হওয়া সত্ত্বেও জংলি জানোয়ারের চেয়ে পিছে পড়ে আছে।

মানুষ একতাবদ্ধ হতে পারে না কেন? কারণ ‘একতা’ প্রত্যেক ব্যক্তির কাছে কোরবানি চায়। সে চায় ব্যক্তি তার ‘একত্ব’ বহুত্বের মধ্যে বিলীন করে ‘একাত্ম’ হয়ে যাক।

মানুষ তার নিজের গুরুত্বের জায়গায় সবাইকে গুরুত্ব দিক। মানুষ তার আমিত্বকে কোরবানি করুক, আর আমিত্বকে কোরবানি করাই সবচেয়ে কঠিন কাজ। মানুষ নিজের জান কোরবান করে দিবে, কিন্তু আমিত্বকে অন্যের হাতে সমর্পণ করবে না।

মানুষের এই দুর্বলতাই তাকে সবসময় একতা ও দলবদ্ধ হওয়া থেকে পেছনে সরিয়ে দেয়। বন্যপ্রাণীদের মধ্যে কোনোপ্রকার ‘আমিত্ব’ নেই, কোনো জিনিস তাদের ইজ্জতের সওয়াল হয় না, এই কারণেই তারা খুব সহজেই একতাবদ্ধ হতে পারে।

একতাবদ্ধ হওয়ার অর্থ ‘আমিত্ব’ বা অহঙ্কারকে বিসর্জন দেওয়া, যেখানে একতা দেখতে পাবেন না, বুঝে নিবেন সেখানকার কেউ নিজের আমিত্বকে বিসর্জন দিতে রাজি নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here